দেশের খবর

সাত হাজার বাড়ির অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

সাত হাজার বাড়ির অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

নরসিংদীতে অভিযান চালিয়ে প্রায় সাত হাজার বাড়ির অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে তিতাস গ্যাস। আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সদর উপজেলার হাজীপুর, বদুয়ারারচর, কান্দাপাড়া, দড়িপাড়া, কোনাপাড়া, পুরানপাড়া, হোসেনপুর, খাসেরচরসহ আরও  কয়েকটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে এসব সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

তিতাস সূত্রে জানা যায়, নরসিংদীতে এক লাখের মতো অবৈধ গ্যাস সংযোগ রয়েছে। পর্যয়ক্রমে এসব সংযোগ বিচ্ছিন্ন করবে প্রতিষ্ঠানটি।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, প্রশাসনের শৈথিল্যের সুযোগ নিয়ে গ্যাস চোরাই সিন্ডিকেট বেপরোয়া হয়ে  উঠেছে। আর তাদের মধ্যে আছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের কিছু নেতা।  এর আগে বিভিন্ন সময় অভিযানে গিয়ে চোরাই সিন্ডিকেটের হামলার শিকার হন অভিযানকারীরা।

তাই বৃহস্পতিবার অভিযানের সময়  সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাকাব্বির আহম্মেদের উপস্থিতিতে অর্ধশতাধিক পুলিশ পুরো এলাকা ঘিরে রাখে। নরসিংদী তিতাস গ্যাসের অঞ্চলিক বিক্রয় কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত উপমহাব্যাবস্থাপক তওহিদুল ইসলাম এই অভিযান পরিচালনা করেন।

কারিগরি সহব্যবস্থাপকের নেতৃত্বে একটি কারিগরি দল মাটি খুঁড়ে ৩ ও ২ ইঞ্চি ব্যাসার্ধের প্রায় ৪ হাজার ফুট লোহার পাইপ উদ্ধার করে।  এসব অতি নি¤œমানের লোহার পাইপ থেকে যেকোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা ছিল বলে জানান তিনি।

তবে অবৈধ সংযোগের ঘটনায় কাউকে আটক বা জরিমানা করা যায়নি।

অভিযান চলাকালে সংযোগ বিচ্ছন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন ভারপ্রাপ্ত উপমহাব্যাবস্থাপক তওহিদুল ইসলাম। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের জানান, নরসিংদীতে একে একে সব অবৈধ গ্যাস সংযোগ তোলে নেয়া হবে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলসড়কের পাশ দিয়ে যাওয়া তিতাসের উচ্চ চাপের সরবারহ লাইন থেকে অবৈধভাবে সংযোগ দিয়ে সাত হাজারের বেশি বাড়িতে গ্যাস দেওয়া হয়। এতে সরকার প্রতিমাসে ৫০ লাখের বেশি টাকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

জানা গেছে, নরসিংদী জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেটরা বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত থাকেন বলে অভিযান পরিচালনা সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। এই সুযোগে সাধারণ মানুষকে ধোঁকা দিয়ে বারবার বাড়ি থেকে টাকা তুলে পুনরায় সংযোগ দিচ্ছে। এই কাজে আওয়ামীগ লীগ ও যুবলীগের কতিপয় নেতা মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে।

নরসিংদী তিতাস গ্যাস বিক্রয় কেন্দ্রের উপমহাব্যাবস্থাপক তওহিদুল ইসলাম বলেন, পুনরায় অবৈধ সংযোগ নেয়া ও সরকারি সম্পদের ক্ষতিসাধনের জন্য মামলা করার প্রস্তুতি চলছে। এখন থেকে বিভিন্ন এলাকায় দু-এক দিন পর পর অভিযান চলবে। নরসিংদীতে কোনো ধরনের অবৈধ গ্যাস সংযোগ থাকবে না।

তিতাস গ্যাস সূত্রে জানা গেছে, নরসিংদীতে প্রায় এক লাখ অবৈধ গ্যাস সংযোগ রয়েছে। ইতিপূর্বে অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে গেলে ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ, সাংবাদিক, তিতাসের লোকজনের ওপর হামলা চালিয়ে গাড়ি ও মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে গ্যাস চোর সিন্ডিকেটে। হামলা ও অবৈধ গ্যাস সংযোগের অভিযোগে অর্ধশতাধিক মামলা হলেও আইনি ব্যবস্থা  নিতে পারেনি পুলিশ। এ ছাড়া অভিযোগ রয়েছে, পুলিশ মোটা অঙ্কের টাকা নিযে আসামি না ধরায় এর বিস্তার এতটা বেড়েছে। তাই এখন অনেকটা বেপরোয় গ্যাস চোরাই সিন্ডিকেট।

সর্বোচ্চ পঠিত

To Top
[X]