জানা- অজানা

সকালবেলা স্বামী-স্ত্রী দুজনে কমপক্ষে ৫ মিনিট জড়িয়ে শুয়ে থাকার উপকারিতা

সমাজ চিরকালই তাদের দ্বিতীয় শ্রেনীর মানুষ করে রেখেছে। আপনার প্রতিদিনের জীবনের সাথে জরিয়ে যে মানুষটা তাকে যোগ্য সম্মান ও ভালোবাসা টুকু দেন তো আপনি ? যে স্ত্রীর থেকে আপনার চাহিদা আকাশ ছোঁয়া, তার মনের খবর টুকু রাখেন তো ? যদি এতদিন না দিয়ে থাকেন তবে ভবিষ্যতে ভালো জীবন পাবার জন্য একটু নতুন করে ভাবুন।

স্ত্রী সম্পর্কে মহাপুরুষদের বাণী কিছু শুনে নিন এবং নিজেকে পরিবর্তন করে নিন সময় থাকতে। এতে ভালো হবে আপনারই আখেরে। পড়তে থাকুন প্রতিবেদনটি –

১) সেই পুরুষ কাপুরুষ যে স্ত্রীর কাছে প্রেমিক হতে পারেনি। – কাজী নজরুল ইসলাম। ২) অন্য নারীর সাথে পরকীয়া করার চেয়ে স্ত্রীকে একবেলা পেটানো ভালো। তবে পেটানোর পরে তিনগুণ বেশি ভালোবাসা আবশ্যক। – জহির রায়হান।

৩) স্ত্রীর সাথে হাসি ঠাট্টা মজা করা স্বামীর কর্তব্য। – হযরত মোহাম্মদ। ৪) যে স্বামী সকালে ঘুম থেকে উঠে স্ত্রীকে কমপক্ষে পাঁচ মিনিট জড়িয়ে ধরে রাখে তার কর্মক্ষেত্রে বিপদের আশঙ্কা থাকে কম। – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

৫) মন ভালো রাখতে বৌকে ফেসবুক, ফোনবুক, নোটবুক সহ সব ধরণের একাউন্টের পাসওয়ার্ড দিয়ে দিন। – মার্ক জুকারবার্গ। ৬) বৌয়েরা ঘরের লক্ষ্মী হয়। এদেরকে যত বেশি ভালোবাসা দেওয়া হয়, তত বেশি সংসারে শান্তি আসে। – হুমায়ুন আহমেদ।

৭) স্ত্রীকে যথেষ্ট পরিমাণে সময় দিন, নাহলে যথেষ্ট পরিমাণে বিশ্বাস করুন। সংসার আর যুদ্ধক্ষেত্র মনে হবে না। – সুনীল গঙ্গপাধ্যায়। ৮) যুদ্ধে বিজয়ী হলেই বিপ্লবী হওয়া যায় না। প্রকৃত বিপ্লবী তো সেই যে স্ত্রীর মনের একমাত্র বীরপুরুষ। – চে গুয়েভারা।

৯) প্রতিদিন একবার স্ত্রীকে “আমি তোমাকে ভালোবাসি” বললে মাথার সব দুশ্চিন্তা দূর হয়ে যায়। – সত্যজিৎ রায়। ১০) একটা শিশুকে দুনিয়ার মুখ দেখাতে মা যে কষ্ট সহ্য করে তা বাবা সারাজীবন ভালোবেসেও শোধ করতে পারে না। তাই প্রত্যেকটা স্বামীর উচিৎ তার সন্তানের মাকে কোনরকম কষ্ট না দেওয়া। – জীবনানন্দ দাস।

১১) স্ত্রীকে সপ্তাহে একদিন ফুচকা খাওয়াতে এবং মাসে একদিন ঘুরতে নিয়ে গেলে স্বামীর শরীর স্বাস্থ্য ভালো থাকে। – সমরেশ মজুমদার।

১২) মেয়েদের মনে ভালোবাসা এবং অভিমান দুটোই থাকে বেশি। তাই অভিমানটাকে ভালোবাসার চেয়ে বড় করে দেখা যাবে না। তাই স্বামীদের উচিৎ স্ত্রীর সব অভিমান ভালোবেসে ভাঙানো। – ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর।

Loading...

সর্বোচ্চ পঠিত

Loading...
Loading...
To Top